শর্ত মেনে চলতে হবে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়
শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:৩৪:২১

প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৭ ১০:০৫:৩৮ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

শর্ত মেনে চলতে হবে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

সিলেট প্রতিনিধি    

শর্ত পূরণ না করে কেউ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় চালাতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, শর্ত পূরণ না করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় চালানো যাবে না। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় চালাতে হলে সরকারের শর্ত মেনে চলতে হবে। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেটের মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। সিলেট সদর উপজেলার বটেশ্বরে ৮ একর জমির ওপর গড়ে ওঠছে মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির অত্যাধুনিক স্থায়ী ক্যাম্পাস।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সরকার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে একটা পর্যায়ে নিয়ে যেতে চায়, নিয়মের মধ্যে রাখতে চায়। এজন্য অন্যতম শর্ত হচ্ছে স্থায়ী ক্যাম্পাসে যাওয়া। আমরা সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে চাপ দিচ্ছি, সময় বেধে দিচ্ছি। ইতিমধ্যেই ২৭টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নিজস্ব স্থায়ী ক্যাম্পাস চালু করেছে। বাকিগুলোর মধ্যে কয়েকটি ছাড়া সবগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ই স্থায়ী ক্যাম্পাসে যাওয়ার প্রক্রিয়া চালাচ্ছে।

মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. সালেহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য স্থায়ী ক্যাম্পাসের জমির পরিমাণ নির্ধারণ করে দিয়েছি আমরা। আমি আনন্দিত, আমাদের নির্ধারিত জমির চেয়ে মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি প্রায় দ্বিগুণ জমিতে স্থায়ী ক্যাম্পাস করেছে। এ ক্যাম্পাসের কাজ যে গতিতে চলছে, দ্রুত তা শেষ হবে বলে আমি আশাবাদী।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, কিছু ব্যতিক্রম ছাড়া ধনী লোকেরা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় খুলে এক সময় মুনাফা করেছে, সনদ বিক্রি করাই ছিল তাদের লক্ষ্য। ক্ষমতায় এসে শেখ হাসিনার সরকার সেই ধারা বন্ধ করে দিয়েছে। সরকার চায়, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যেন মান ও আস্থার দিক থেকে উন্নত পর্যায়ের হয়। এজন্য বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নিয়মের মধ্যে আনতে আমরা অনেক পরিশ্রম করেছি।

অসৎ শিক্ষকদের সমালোচনা করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের সিংহভাগ শিক্ষকই মাথার মণি। কিন্তু কিছু লোক শিক্ষক নামের কুলাঙ্গার। এরা ক্লাসের বাইরে টাকা নিয়ে পড়ায়, এরা প্রশ্ন ফাঁসে জড়িত। তাই তারা ধরাও পড়ছে। মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির সহকারি প্রক্টর অ্যাডভোকেট আব্বাস উদ্দিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন, বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব মো. সাইফুজ্জামান শিখর প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ফজলুর রব তানভীর, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কামরুল আহসান, খাদিমপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আফছর আহমদ।

সংবাদটি পঠিতঃ ১৪৩ বার