বিসিজেএম'র সভাপতি এসএম আহমেদ, সম্পাদক এমজে আলম
শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০১৭, ১২:৩৫:৩৩

প্রকাশিত : সোমবার, ৩১ জুলাই ২০১৭ ০৩:৪৬:০০ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

বিসিজেএম'র সভাপতি এসএম আহমেদ, সম্পাদক এমজে আলম

শামছুজ্জামান নাঈম

মালয়েশিয়াঃ বাংলাদেশ কমিউনিটি অফ জোহর মালয়েশিয়ার (বিসিজেএম) সভাপতি পদে ৪২ ভোটের মধ্যে দোয়াত-কলম প্রতিক নিয়ে সর্বাধিক ৩১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এসএম আহমেদ। 

গোলাপ ফুল প্রতিক নিয়ে ১১ ভোট পেয়েছেন তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক সভাপতি তরিকুল ইসলাম রবিন।

নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এমদাদুল হক কনক।

অন্যদিকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাধারণ সম্পাদক পুন.নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক এমজে আলম।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত হয়েছেন মোয়াজ্জেম হোসেন রানা।

কোষাধ্যক্ষ পদে খাতা-কলম প্রতিক নিয়ে ২৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. দেলোয়ার হোসেন। এছাড়া ক্যালকুলেটর প্রতিক নিয়ে ১৯ ভোট পেয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্বাস আলী।

নব-নির্বাচিত সভাপতি এসএম আহমেদ বলেন, জোহর কমিউনিটির সার্বিক কল্যাণে সর্বদা কাজ করে যাবো। বিসিজেএম-কে মালয়েশিয়াসহ বিশ্বের মাঝে একটি মডেল কমিউনিটি হিসেবে পরিচিত করবো ইনশাআল্লাহ।

একই সঙ্গে কমিউনিটিকে এগিয়ে নিতে সাবেক সভাপতিসহ সকলের সহযোগিতা চান।

এদিকে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তরিকুল ইসলাম রবিন বলেন, আমি দীর্ঘ ২ বছর কমিউনিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছি। চেষ্টা করেছি আপনাদের জন্য কিছু করার। তবে কমিউনিটিকে এগিয়ে নিতে আমি নব-নির্বাচিত সভাপতিকে সর্বপ্রকার সহযোগিতা করবো।

এর আগে গত তিনমাস ধরেই জোহর বারুর বাংলাদেশ কমিউনিটি নির্বাচনকে ঘিরে ভোটারদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ করা গেছে।
 
নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ৪২ জন। সভাপতি ও কোষাধ্যক্ষ ২টি পদের বিপরীতে লড়েছিলেন ৪ জন প্রার্থী।

নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে সহযোগিতা করেন নির্বাচন কমিশনার রুহুল আমিন ও আবুল হোসেন। এছাড়া নির্বাচনে সার্বিক সহযোগিতা করেন এমডি নুরুল ইসলাম কাজল।
 
নির্বাচনের আগে স্ব-স্ব পদে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী ছিলেন চার প্রার্থীই।

২০১৫ সালের জানুয়ারিতে মালয়েশিয়ায় বন্যা কবলিত মানুষকে সহযোগিতা করার উদ্যোগ নেন এমজে আলম, মোহাম্মদ ফাহিম, আমিন ইসলাম ও মো. বাবলু।

এ জন্য সকলের কাছ থেকে লক্ষাধিক রিঙ্গিতের একটি তহবিল গঠন করে তা বন্টন করে মালয়েশিয়ান সরকারের প্রশংসা অর্জন করেন।

পরে মো. জয়নাল আবেদীন, এমএ মান্নান, মো. জাকির হোসেন, মো. রুহুল আমিন, এমদাদুল হক কনক, মো. দেলোয়ার হোসেন, মো. আব্বাস আলী, মো. রানা, মো. জনী শেখ, শারফিন মিয়া, মানিক প্রধান, এস এম আহমেদ, তরিকুল ইসলাম রবিন, মো. শাকিল, মো. শামীম, মো. নজরুল ইসলাম বাবু, শামীম এজাজ, মো. ইমরান, মো. কাজলসহ কয়েকজন মিলে ২৬ মার্চ ২০১৫ সালে বাংলাদেশ কমিউনিটি অফ জোহর মালয়েশিয়ার (বিসিজেএম) নামে একটি সংগঠন তৈরি করেন।

যা পরবর্তিতে জোহর বারুর বাংলাদেশ কমিউনিটি সাধারণ জনগনের কল্যাণে কাজ করে ব্যাপক সুনাম অর্জন করে।

সংবাদটি পঠিতঃ ১৮৩ বার