মঙ্গলবার ২১ নভেম্বর ২০১৭, ০২:৪৫:৪৩

প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ০৯ নভেম্বর ২০১৭ ০৬:২৪:০৩ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

বাংলাদেশের বাইরে আমার কোনো ঠিকানা নেই: খালেদা জিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, মঈনউদ্দীন-ফখরুদ্দিনের সরকার বৈধ ছিলো না, অসাংবিধানিক ছিলো। তারা আমাকে নানা প্রস্তাব দিয়েছিলো। তাদের আমি সমর্থন জানাতে পারিনি। সপরিবারে দেশত্যাগ করতে বলেছিলো। আমি তাদের কথা মানিনি। আমার ও পরিবারের নিরাপত্তার কথা ভাবিনি। তাদেরকে স্পষ্ট ভাষায় বলেছি, বাংলাদেশের বাইরে আমার কোনো ঠিকানা নেই। জীবনে-মরণে আমি বাংলাদেশেই থাকতে চাই।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালতে তিনি এসব কথা বলেন। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় চতুর্থ দিনের মতো আত্মপক্ষ সমর্থন করে আদালতে প্রায় দেড় ঘণ্টা বক্তব্য রাখেন বেগম জিয়া

বক্তব্যের শুরুতে খালেদা জিয়া বলেন, মাননীয় আদালত আমি বিশ্বাস করতে চাই যে, আপনি সাহস ও সততার সঙ্গে সরকারের প্রভাবমুক্ত থেকে আইন অনুযায়ী ন্যায় বিচার করবেন। আমাদের বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ স্বাধীন করা হলেও সাম্প্রতিক বিভিন্ন উদাহরণ সেই দাবীকে প্রতিনিয়ত প্রতারিত করছে।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন ইস্যুতে আলোচনা করে সমাধানের পথ খোঁজার চেষ্টা করেছি। সমঝোতার মাধ্যমে রাষ্ট্র পরিচালনা ও জনগণের হাতে ক্ষমতা ফিরিয়ে দেওয়াসহ ভালো প্রশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য ভিশন টোয়েন্টি-টোয়েন্টি ঘোষণা করেছি। এসব উদারতার জবাব আমাদের কোন ভাষায় দেওয়া হচ্ছে তা সবাই জানে, আপনিও জানেন। এদেশে গণতন্ত্র নেই, কার্যকর সংসদ নেই, প্রহসনের প্রশাসন চলছে। গুম, খুন, অপহরণ, নির্যাতন ও বিচারহীনতার রাজত্ব চলছে। ক্ষমতার অপব্যবহার চলছে।

বর্তমান সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন বলেন, আসুন, রাজনীতিতে সহিষ্ণু, সুন্দর সংস্কৃতি গড়ে তুলি। যা গণতন্ত্রের জন্য খুবই প্রয়োজন। যাতে আমাদের কাছ থেকে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ভালো কিছু শিখতে পারে। প্রতিহিংসামূলক বৈরী আচরণের পরও আমি তাকে (শেখ হাসিনা) ক্ষমা করে দিয়েছি।

সংবাদটি পঠিতঃ ৪৯২ বার