সোমবার ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৪:৪৫:৩২

প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ০৫ এপ্রিল ২০১৮ ১১:৩০:১৬ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon


বীরপ্রতীক হামিদুল হক মারা গেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

বীরপ্রতীক হামিদুল হক মারা গেছেন। রাজধানী মালিবাগে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালে বৃহস্পতিবার ভোর সোয়া চারটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। হামিদুল হকের পরিবার ও হসপিটালের কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, গত ২৭ মার্চ ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালে ভর্তি করা হয় হামিদুল হককে। তিনি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি ও ফুসফুসের বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। ভর্তির পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে গত ১ এপ্রিল আইসিইউতে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা।

সিরাজুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালের প্রধান নির্বাহী (সিইও) প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ডা. এম এ আজিজ বলেন, তিনি বিভিন্ন ধরনের শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। ফুসফুসে সমস্যা থাকায় অক্সিজেন নিতে পারতেন না। আজ ভোরে হৃদযন্ত্র বিকল হলে তার মৃত্যু হয়।

বীরপ্রতীক হামিদুল হকের ছেলে ওবাইদুল ইসলাম বলেন, বাবা ভোরে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। সকালে আমরা বাবার মরদেহ নিয়ে বাড়ির পথে রওনা হয়েছি।

মুক্তিযুদ্ধে সাহস ও বীরত্বের জন্য হামিদুল হককে বীরপ্রতীক খেতাবে ভূষিত করা হয়। ১৯৭৩ সালের সরকারি গেজেট অনুযায়ী তার বীরত্বভূষণ নম্বর ৪২২। তিনি ১৯৭২ ও ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে তার একাধিকবার দেখাও করেছেন। ১৯৯০ সালে সখীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন বীরপ্রতীক হামিদুল হক। সখীপুর পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের একটি ভাড়া বাসায় সপরিবারে থাকতেন তিনি। মৃত্যুর সময় তিনি স্ত্রী রোমেচা বেগম এবং চার ছেলে ও এক মেয়েকে রেখে গেছেন।

সংবাদটি পঠিতঃ ২৫৫ বার


সর্বশেষ খবর