শনিবার ২৩ জুন ২০১৮, ০৮:২৫:২৮

প্রকাশিত : বুধবার, ১১ এপ্রিল ২০১৮ ০১:৪৮:৪৪ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon


কোটা সংস্কারে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

নিজেদের মধ্যকার বিভক্তি দূর করে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছেন চাকরিতে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর বক্তব্যের প্রতিবাদে আবারও মাঠে নামার ঘোষণা দিয়েছেন তারা। 

মঙ্গলবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক মো. রাশেদ খান এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন। এসময় ‘কত শতাংশ কোটা রাখা হবে তা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সুনির্দিষ্ট ঘোষণা দাবি করা হয়। জাতীয় সংসদে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী কোটা সংস্কারের আন্দোলনকারীদেরসহ ৮০ শতাংশ শিক্ষার্থীকে রাজাকারের বাচ্চা বলে গালি দেয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু কোটা সংস্কার আন্দোলনের কর্মীদের দাবিগুলো যৌক্তিক বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শিক্ষক সমিতির নেতারা।

এদিকে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর বক্তব্যের প্রতিবাদে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। কোটা ব্যবস্থাকে জাতির জন্য ‘লজ্জাজনক’ আখ্যায়িত করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম এবং শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলনকে সমর্থন করে গত রোববার বিবৃতি দিয়েছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নেতারা। একই দাবিতে বিক্ষোভ করেছে বুয়েট, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা। তবে গতকাল সকাল থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভক্ত হয়ে আলাদা আলাদা সংবাদ সম্মেলন করলেও সন্ধ্যায় আবার ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলনের ঘোষণা দেন তারা। 

ওদিকে চলমান কোটা সংস্কারের আন্দোলনে একাত্মতা ঘোষণা করে সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষার্থীরা। গতকাল এ দাবিতে কুড়িল বিশ্বরোড বসুন্ধরা গেট, নর্দা-প্রগতি সরণির রাস্তা অবরোধ করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা কোটা সংস্কারের সুনির্দিষ্ট ঘোষণার আগ পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। গতকাল সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজের শিক্ষার্থীরা ব্যানার, প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত করে তোলেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও রাজপথ। 

কোটা সংস্কারের এই আন্দোলনকারীদের দাবিগুলো যৌক্তিক বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শিক্ষক সমিতির নেতারা।

সংবাদটি পঠিতঃ ৯২ বার


সর্বশেষ খবর