শনিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৭:১১:৩৫

প্রকাশিত : শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৭ ১০:৫২:৪৮ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

ভাসানীই প্রথম স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন: মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতিনিধি:

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমরা ভুলে যাই যে মওলানা আব্দুল খান হামিদ খান ভাসানীই প্রথম বাংলাদেশের স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। তিনিই প্রথম পাকিস্তানকে আসসালামু আলাইকুম বলেছিলেন। ১৯৭০ সালের ভয়াবহ ঘূর্ণি ঝড়ের পর যখন পাকিস্তানের কেউ দেখতে আসেনি তখন তিনি পল্টন ময়দানে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন ওরা কেউ দেখতে আসেনি। আসসালামু আলাইকুম পাকিস্তান, আমরা আর আপনাদের সঙ্গে নেই। 

শনিবার দুপুরে রাজধানীর ডিআরইউ মিলনায়তনে মাওলানা ভাসানী স্মৃতি সংসদের আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, মওলানা ভাসানী তার সারাটা জীবন মানুষের জন্য  উৎসর্গ করেছেন। শোষনকে দূর করবার জন্যে, উপমহাদেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে নিজেকে উৎসর্গ করেছেন।

দুঃখ ভারাক্রান্ত কণ্ঠে তিনি বলেন,  আমার গতকাল খুব দুঃখ হয়েছে। আমি যখন টাঙ্গাইলের সন্তোস গিয়ে পৌঁছলাম মওলানা ভাসানীর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে, দেখি সেখানে কোনো আয়োজন নেই। প্রতিবার দেখি সেখানে কিছু আয়োজন হয়। এবার সরকার সেটা করতে দেয়নি। কি দুর্ভাগ্য এই জাতির, যে জাতি সত্ত্বা যাদের মুখ দিয়ে উচ্চারিত হয়েছে, যারা এই অধিকারের জন্য সংগ্রাম করেছেন, যারা তাদের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন আজকে আমরা তাদেরকে আস্বীকার করি।

৭ মার্চের ভাষণ ইউনেস্কোর তালিকাভুক্ত হওয়া প্রসঙ্গে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ৭ মার্চের ভাষণ ইউনেস্কোর তালিকাভুক্ত হয়েছে, এটা আনন্দের কথা। এ উপলক্ষে সমাবেশ করছেন, তাও আনন্দের কথা। কিন্তু সকাল থেকে দেখলাম স্কুলের বাচ্চাদের বাসে করে নিয়ে আসা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, তারা শিক্ষকদের বলছেন, না আসলে বেতন কাটা যাবে। ব্যাংকে চিঠি দিয়েছেন কর্মচারীদের। তাদের বলা হয়েছে, সমাবেশে না আসলে ৫ দিনের বেতন কাটা যাবে।

মাওলানা ভাসানীর ৪১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন জিয়াউল হক নিলু।

সংবাদটি পঠিতঃ ৭৯৯ বার