বুধবার ২৫ এপ্রিল ২০১৮, ১২:৪৯:২৫

প্রকাশিত : শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০১৫ ০৭:১৫:৩৩ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon


বিএনপি সরকারে ব্যর্থ, আন্দোলনেও ব্যর্থ: প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, দেশের বার্তা.কম

ঢাকা: বিএনপি সরকারেরও ব্যর্থ ছিল, এখন আন্দোলনে ব্যর্থ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  বৃহস্পতিবার দশম সংসদের পঞ্চম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাব আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সংসদ সচল, প্রাণবন্ত ও কার্যকর। এ সংসদ জাতির জন্য কাজ করে যাচ্ছে। দেশের মানুষের জন্যই আমার রাজনীতি। আমার নিজের কোনো চাওয়া পাওয়া নেই।

এ সময় দেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়েই ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন শেখ হাসিনা। বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমরা সৃষ্টি করব আর উনি (খালেদা জিয়া) ধ্বংস করছেন। বাংলাদেশকে ধ্বংস করাই খালেদা জিয়ার খেলা।

বিএনপি সংসদে বিরোধীদল হিসেবে না থাকায় স্বস্তি প্রকাশ করে সংসদ নেতা বলেন, বিএনপি বিরোধীদলে থাকায় অশালীন কথা বলত। বিএনপি নেত্রী তো সংসদেই আসতেন না। সেই যন্ত্রণার হাত থেকে বর্তমান বিরোধীদল জাতিকে মুক্তি দিয়েছে। এখন আর খিস্তিখেউর শুনতে হয় না। এ জন্য তিনি বিরোধীদলকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, আমরা আনি পুরস্কার আর তিনি (খালেদা জিয়া) তিরস্কারের ব্যবস্থা করেন। উইমেন ইন পার্লামেন্ট গ্লোবাল ফোরাম পুরস্কার দিয়েছে। দিবেই, বাংলাদেশের সংসদ পৃথিবীর মধ্যে একমাত্র সংসদ যেখানে স্পিকার নারী, সংসদ নেতা ও উপনেতা এবং বিরোধী দলীয় নেত্রীও নারী। হিংসা করার কিছু নেই, পুরুষরা সবসময়ই করে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া সফলতা কোথায় দেখেন? সব ক্ষেত্রে বিএনপি ব্যর্থ শুধু দুর্নীতিতে তারা সফল। আর সন্ত্রাসী দিয়ে সকলের উপর অত্যাচার করেছে। বিএনপির পৃষ্ঠপোষকতায় সারা বাংলাদেশে বোমাবাজি, গ্রেনেড হামলা হয়েছে। কত মানুষ মারা হয়েছে! বিএনপির আমলে একই দিনে সারাদেশের পাঁচশ জায়গায় বোমা হামলা হয়েছে। প্রকাশ্য দিবালোকে অস্ত্র হাতে নিয়ে মিছিল করেছে। অপারেশন ক্লিন হার্টের নামে মানুষ হত্যা করা হয়েছে। জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাস সৃষ্টি, দুর্নীতি ও লুটপাট করা, সম্পদের পাহাড় করেছে। এটিই হলো সফলতা।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশকে ধ্বংস করার জন্য ৬ জানুয়ারি থেকে জ্বালাও-পোড়াও শুরু হয়েছে। তারা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছে, ব্যর্থ না হলে মানুষকে পুড়িয়ে মারত না। উনি (খালেদা জিয়া) ধমকান, থ্রেট করেন, মন্ত্রিত্বের লোভ দেন, তবু তার দল নড়ে না।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, খালেদা জিয়া ২১ ফেব্রুয়ারি শহীদ মিনারে গেলেন না। ২৬ মার্চ স্মৃতিসৌধে গেলেন না। কারণ উনি বাংলাদেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করেন না। আমার এটাই বোধগম্য না, নিজের বাসাবাড়ি ছেড়ে দিয়ে অফিসে থাকা। এ রহস্যটা জানি না কেউ উদ্ধার করতে পারে কি না? এরশাদ সাহেব পারতে পারেন।

শত নাগরিক কমিটির সমালোচনা করে তিনি বলেন, কত নাগরিক, শত নাগরিক উনাদের কি কোনো বিবেক নেই? যার এতটুকু বিবেক আছে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা সমর্থন করতে পারেন না।


দেশের বার্তা/মাআসা

 

সংবাদটি পঠিতঃ ৭৬ বার


ট্যাগ নিউজ

সর্বশেষ খবর