শনিবার ২৩ জুন ২০১৮, ১১:৫৬:৫৮

প্রকাশিত : বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০১৫ ০৪:৫৩:০৮ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon


কোকাকোলা পান না করার ব্যাখ্যা বিজ্ঞানীর

সাইফুল:

কেন আমরা কোক খাব না‚ এই মর্মে ব্লগ লিখেছেন ভারতীয় বিজ্ঞানী নীরজ নায়েক। ‘ ট্রুথ থিওরি‘ শীর্ষক ওই ব্লগ খুব অল্প সময়ে ভাইরাল হয়েছে। আসুন দেখা যাক বিজ্ঞানী নায়েক মূলত কী কী কারণ দেখিয়েছেন কোক-বর্জনের পিছনে।

নীরজ নায়েকের মতে‚ কোক সেবনের প্রথম ১০ মিনিটের মধ্যে ১০ চা চামচ চিনি গ্রহণ হয়ে যায়। যা নাকি‚ সারাদিনে গ্রহণীয় চিনির সর্বোচ্চ সীমা। এত চিনির প্রভাবে কোক পান করেই বমি বমি ভাব বা গা গুলোনোর কথা। কিন্তু এই পানীয়তে থাকা ফসফরিক অ্যাসিডের জন্য সেটা হয় না।

কোক সেবনের প্রথম কুড়ি মিনিটের মধ্যে দেহে শর্করার পরিমাণ এত বেড়ে যায়‚ যকৃৎ তখন শর্করাকে ফ্যাটে রূপান্তরিত করে। কোকে উপস্থিত ফ্রুক্টোজ দেহের জন্য ক্ষতিকারক। ফলেও প্রচুর ফ্রুক্টোজ থাকে। কিন্তু ফলে আবার যথেষ্ট পরিমাণে ফাইবারও থাকে। যার ফলে মানবদেহে ফ্রুক্টোজ বেশি মেশে না। সারা বিশ্বে প্রতিদিন গড়ে ১.৬ বিলিয়ন মানুষ কোক সেবন করেন। তাদের প্রতি বিজ্ঞানী নায়েকের সাবধানবাণী‚ কোকা কোলায় আসক্তি কার্যত মাদকাসক্তির মতোই ক্ষতিকারক।

সংবাদটি পঠিতঃ ৫৯১ বার


ট্যাগ নিউজ

সর্বশেষ খবর