আজ শুরু হচ্ছে বেসিস সফটএক্সপো
বুধবার ২২ নভেম্বর ২০১৭, ১১:২৭:০৪

প্রকাশিত : বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ ০৩:২৬:১০ পূর্বাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

আজ শুরু হচ্ছে বেসিস সফটএক্সপো

আজ (১ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের বেসরকারি খাতের সবচেয়ে বড় তথ্যপ্রযুক্তি-বিষয়ক প্রদর্শনী বেসিস সফটএক্সপো ২০১৭।  রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘ফিউচার ইন মোশন’ স্লোগান নিয়ে ১১তম এ প্রদর্শনীর আয়োজন করছে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের শীর্ষ বাণিজ্যিক সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)।

প্রদর্শনীটি চলবে ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। আইটি সেক্টরে বাংলাদেশের দক্ষতা, আবিষ্কার এবং শক্তি ও আইটি ভিত্তিক সেবা আর্ন্তজাতিক অঙ্গনে তুলে ধরাই এর লক্ষ্য।

স্পিকার ড. শিরিন শারমিন চৌধুরী আগামীকাল সকালে এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন।  বিশেষ অতিথি থাকবেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল এবং তথ্য ও যোগযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। 

বেসিস সফটএক্সপো -২০১৭ এর আহবায়ক সৈয়দ আলম কবির জানান, স্থানীয় ৪০টি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিচ্ছে। তারা তাদের উৎপাদিত পণ্য ব্যাংক, সরকার, টেলিকম অপারেটর, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বিদেশী কোম্পানি এবং আইটি ব্যবহারকারীদের সামনে তুলে ধরবেন।
বেসিস’র পরিচালক কবির বলেন, আমরা ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাজারকে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছি। এ লক্ষ্যে স্থানীয় ফার্ম এবং ইউরোপীয় বায়ারদের মধ্যে যোগাযোগ করিয়ে দিতে বিটুবি (বিজনেস টু বিজনেস) সেশনের আয়োজন করা হবে। তিনি জানান, প্রদর্শনী এলাকাটি চারটি জোনে ভাগ করা হবে। এগুলো হচ্ছে, বিজনেস সফটওয়্যার জোন, আইটিস এবং বিপিও জোন, মোবাইল ইনোভেশন জোন ও ই-কমার্স জোন।

এ ছাড়া আইটি ব্যবসা সম্প্রসারণে স্থানীয় ও বিদেশী বিজনেস ম্যাচ মেকিং সেশন আয়োজন করা হবে। প্রদর্শকদের জন্য একটি বিজনেস লাউঞ্জ থাকবে। পাশাপাশি এ বছর নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়, ডেভলোপার সম্মেলন এবং অন্যান্য ইভেন্টও থাকবে মেলায়। মেলায় শিশুদের জন্য একটি অতিরিক্ত ইভেন্ট থাকবে।

এবারের মেলায় ৫ লাখের অধিক দশর্ক আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। চারদিনের মেলায় প্রায় ২০টি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এতে স্থানীয় কোম্পানির জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড, ডিজিটাল এডুকেশন এবং ই লার্নিং, মোবাইল এ্যাপলিকেশন ডেভলোপমেন্ট. ইন্টারনেট অব থিঙ্কস্, এ্যাকসেস টু ফিন্যান্স, ক্লাউড কম্পিউটিং ডাটা নেটওয়ার্কিং সিকিউরিটি, এক্সপোর্ট মাকের্ট প্রমোশন, ডেভলোপিং ইনোভেশন ইকোসিস্টেম, ডিজিটাল সাভির্স ডেলিভারি, আইটি মাকের্ট রিসার্জ এবং কোয়ালিটি সার্টিফিকেশনসহ বিভিন্ন টফিকস্ থাকবে। পাশাপাশি আইসিটি সংক্রান্ত বিভিন্ন ইস্যু এবং দশটিরও বেশি প্রযুক্তি সেশনেরও আয়োজন করা হবে। রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে আগ্রহী যে কেউ বিনা মূল্যে অনলাইনের মাধ্যমে এই সুযোগ লুফে নিতে পারবে।

সংবাদটি পঠিতঃ ১৪৮ বার