আজ মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৬:০৫:৫৪

প্রকাশিত : রবিবার, ০৪ জুন ২০১৭ ০৭:৫৩:১৯ অপরাহ্ন Zoom In Zoom Out No icon

ব্যাংকের বর্ধিত আবগারি শুল্ক প্রত্যাহার দাবি ১৪ দলের

মুক্তবাণী.কম

নিজস্ব প্রতিবেদক: 

আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের সবচেয়ে বেশি আলোচিত-সমালোচিত বিষয় ব্যাংক হিসাবের বর্ধিত আবগারি শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়েছে ক্ষমতাসীন জোট ১৪ দল। বাজেট প্রস্তাবের তিন দিনের মাথায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক বৈঠকে এই দাবি জানান হয়।

রবিবার বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান ১৪ দলের প্রধান সমন্বয়ক আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিম, বৈঠকের সভাপতি জাতীয় পার্টির (জেপি) সাধারণ সম্পাদক শেখ শহীদুল ইসলাম ও জাসদের (একাংশ) সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া।

গত বৃহস্পতিবার প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংক হিসাবে বছরের কোনো একটি সময় এক লাখ টাকার লেনদেন হলে ৮০০ টাকা আবগারি শুল্কের প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গত অর্থবছর পর্যন্ত এই কর ছিল ৫০০ টাকা।

এই শুল্কারোপের প্রস্তাবের তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়েছে দেশজুড়ে। সাধারণ ব্যাংক গ্রাহকদের মধ্যে নানা গুজবও ছড়িয়েছে। অর্থনীতিবিদ আর ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার দাবিও এসেছে। আর এসব প্রতিক্রিয়ার ভিড়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান শনিবার বলেছেন, এই সিদ্ধান্ত তারা আবার ভেবে দেখবেন। 

১৪ দলের সভা শেষে মো. নাসিম বলেন, ‘ব্যাংক হিসাবে আমানতের ওপর আবগারি শুল্ক ও সারচার্জসহ কয়েকটি বিষয়ে আমরা আলোচনা করেছি, এ বিষয়ে আমাদের পর্যবেক্ষণ রয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের কয়েকটি বিষয় জনগণের আকাক্সক্ষা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে। সেগুলো আশা করি প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রী বিবেচনা করবেন।

বৈঠকের সভাপতি শেখ শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘জনগণের সুবিধার কথা চিন্তা করে আমরা ১৪ দল মনে করি বাজেটের কিছু বিষয় সংশোধন করা দরকার। এর মধ্যে আবগারি শুল্প ও সারচার্জ প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। এ ছাড়াও জনমনে প্রতিক্রিয়া পড়ে, এমন অংশটুকুও প্রত্যাহারের আবেদন করছি।

জাসদের (একাংশ) সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া বলেন, ‘বাজেটের কিছু বিষয় সংশোধনের প্রয়োজন আছে। আমানতের বিষয়টি, আবগারি শুল্ক বর্ধিত করা- এসব প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি আমরা।

চার লাখ ২৬৬ কোটি টাকার ‘উচ্চাভিলাষী বাজেট’ দেওয়ায় অর্থমন্ত্রীকে ধন্যবাদও জানিয়েছে ১৪ দল। নাসিম বলেন, ‘এই বাজেট প্রমাণ করেছে যে, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে উচ্চমধ্যম আয়ের দেশের দিকে আমরা এগোব।

প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সমালোচনার সমালোচনা করেন নাসিম বলেন, ‘বাজেটের আট ঘণ্টার মধ্যেই না পড়ে, না বুঝে একটি ইফতারিতে গিয়ে তিনি মিথ্যা বলছেন। এটি তার চরিত্র।

নাসিম বলেন, ‘এ বাজেট গরিবকে সাহায্য করবে। কিন্তু তারা (বিএনপি) সমালোচনা করতে অভ্যস্ত, আমাদের সমর্থন তারা করতে পারেন না। হাওয়া ভবন বানিয়ে যারা ধনীর স্বার্থরক্ষা করেছে তাদের মুখে এসব (গরিব শোষণের বাজেট বলা) শোভা পায় না।

যেসব অর্থনীতিবিদ প্রস্তাবিত বাজেটের সমালোচনা করছেন, তাদেরকে নিয়েও টিপ্পনি কাটেন নাসিম। তিনি বলেন, ‘বিশ্লেষণে কিছুটা নেগেটিভ না বললে তারা আবার অর্থনীতিবিদ হবেন কীভাবে? এটা তাদের অভ্যাস।

জাতীয় পার্টি (জেপি-মঞ্জু) সাধারণ সম্পাদক শেখ শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবীর নানক, সংগঠনিক সম্পাদক আহম্মদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ।

সংবাদটি পঠিতঃ ১১৮ বার

সর্বশেষ খবর