শনিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৮ ০৫:২৫:৩০ অপরাহ্ন

ভারতে শিশু ধর্ষণে ফাঁসির আইন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : 

ভারতে ১২ বছরের কম বয়সী শিশুদের ধর্ষণের দায়ে দোষীকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হবে। দেশটির মন্ত্রিপরিষদের এক জরুরি সভায় এ অধ্যাদেশ জারি করা হয়েছে। ভারতীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম এমন তথ্যই জানিয়েছে।

শনিবার (২১ এপ্রিল) দেশটির মন্ত্রিপরিষদের এক সভায় শিশু ধর্ষণকারীদের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের সাজার অধ্যাদেশ জারি করা হয়।
এই উদ্যোগকে শিশু ধর্ষণকারীদের বিরুদ্ধে ভারত সরকারের কঠোর হুঁশিয়ারি হিসেবে দেখা হচ্ছে।

পাঁচদিনের বিদেশ সফর শেষে দেশে ফেরার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদের সভায় এই অধ্যাদেশ জারি করা হয়। 
গত ১০ জানুয়ারি কাশ্মীরের কাঠুয়া শহরের রাসানা এলাকায় আট বছরের এক শিশুকে গণধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় ভারত জুড়ে ক্ষোভের মুখে গত সপ্তাহে নারী ও শিশু উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী মেনকা গান্ধী এ সংক্রান্ত আইনে পরিবর্তনের কথা বলেন। মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দেয়।

এ ধরনের সুপারিশ এটিই প্রথম নয়। এর আগেও অনেকবার এ ধরনের পরিবর্তন আনতে সুপারিশ করা হয়েছে।

এর আগে দিল্লিতে ২৩ বছর বয়সী এক নারীকে গণধর্ষণের পর ধর্ষণের আইনগুলি পুনর্বিবেচনার জন্য বিশেষজ্ঞরা জোর দাবি তুলেছিলেন। সে সময় তারা বলেছিলেন, ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হলেও এ ধরনের ঘটনা ঘটেই চলেছে। এই দণ্ডাদেশ এ ধরনের ঘটনা কমাতে খুব একটা প্রভাব ফেলছে না।

মোদি সরকার গত জানুয়ারিতে ধর্ষণের আইনগুলি পুনর্বিবেচনার জন্য প্রস্তাব উত্থাপন করে। সেমসয় কেন্দ্রের আইনজীবীরা সুপ্রিম কোর্টকে বলেছিলেন, ‘মৃত্যুদণ্ডাদেশই শেষ কথা নয়’।

কাশ্মীরের কাঠুয়া ও উত্তর প্রদেশে ধর্ষণের ঘটনার পরে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠে গোটা ভারত। কিন্তু উভয় ঘটনাতেই বিজেপির নেতারা ধর্ষকদের বাঁচাতে চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

২৭০/১(৩য় তলা) ধানমন্ডি-১৫ (পুরাতন)৮/এ(নুতন),ধানমন্ডি,ঢাকা-১২০৯ ইমেইলঃ muktobani@gmail.com ,Skype: muktobani.com টেকনিকালঃ ০১৭৯৪১০০০০৯, নিউজ রুমঃ ০১৫৫২৬০১৮০৫ Developed by : PHP Boss